July 17, 2024, 1:23 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
খুলনাঞ্চলে ফের বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগী

খুলনাঞ্চলে ফের বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগী

খুলনা ব্যুরো: খুলনাঞ্চলে ফের করোনার প্রকোপ শুরু হয়েছে। গত চারদিনে খুলনা মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর মেশিনে জ্যামিতিক হারে বাড়ছে করোনা শনাক্তের সংখ্যা। রবিবার (১ নভেম্বর) করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন যশোরের এক চিকিৎসক। এদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী সকল হাসপাতালে প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দিলেও খুলনায় দৃশ্যমান কার্যক্রম নেই।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, খুলনা মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবে গত ২৮ অক্টোবর করোনা শনাক্ত হয়েছিল ৭ জন, ২৯ অক্টোবর একদিনেই শনাক্ত হয় ১৪ জন, ৩০ অক্টোবর ২২ জন আর ৩১ অক্টোবর করোনা শনাক্ত হয় ৪০ জনের। পিসিআর ল্যাবে করোনা শনাক্ত হওয়ার জ্যামিতিক এই হারকে খুবই চিন্তার বিষয় হিসেবে দেখছে অধ্যাপক ডাঃ এস এম কামাল হোসেন। তিনি বলেন, সরকার ও বিভিন্ন তরফ থেকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ব্যাপারে সতর্ক করা হলেও মানুষের মধ্যে তেমন কোন সচেতনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ফলে যা হবার তাই হচ্ছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, বিভাগে জেলাভিত্তিক হিসাবে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৬১৬ জন রোগী শুধু খুলনা জেলায় শনাক্ত হয়েছেন। এ ছাড়া বাগেরহাটে ১ হাজার ১১ জন, চুয়াডাঙ্গায় ১ হাজার ৫০৮ জন, যশোরে ৪ হাজার ৮০ জন, ঝিনাইদহে ২ হাজার ৫৯ জন, কুষ্টিয়ায় ৩ হাজার ৪৩৮ জন, মাগুরায় ৯৪০ জন, মেহেরপুরে ৬৫১ জন, নড়াইলে ১ হাজার ৪০৮ জন এবং সাতক্ষীরায় ১ হাজার ১০৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত এক সপ্তাহের খুলনা বিভাগের করোনা প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ধীরে ধীরে করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে।

এদিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালগুলোতে প্রস্তুত থাকতে বললেও খুলনায় দৃশ্যমান কোন প্রস্তুতি নেই। বিভাগের কোন জেলা হাসপাতালেই আইসিইউ এখন পর্যন্ত করতে পারেনি। তবে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সীমিত পরিসরে আইসিইউ সেবা চালু থাকলেও তা করোনা রোগীদের চিকিৎসায় গত ৮ মাসে ব্যবহার হয়নি

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ রাশিদা সুলতানা খুলনা গেজেটকে বলেন, ইউরোপে ইতোমধ্যে করোনা আবারও বেড়েছে। নতুন করে ব্রিটেনসহ কয়েকটি দেশে লকডাউন দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশেও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় প্রস্তুুতি নেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ইতিমধ্যে বিভাগের সকল হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডকে পর্যাপ্ত বেডসহ প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে। চিকিৎসকদের চিকিৎসা সরঞ্জামের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। খুলনার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে পর্যাপ্ত বেড শূন্য আছে। আশাকরি সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে সবাই মিলে করোনার দি¦তীয় ঢেউ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com