July 23, 2024, 5:14 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
শিরোনাম:
সাতক্ষীরা থানায় হামলার চেষ্টা, পুলিশের লাঠিচার্জ ও ফাঁকা গুলি কলারোয়ার ওয়াজেদ সরদার স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্ধোধন যশোরে ডিবি পুলিশের অভিযানে পিস্তলসহ যুবক আটক বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি হবে : প্রধানমন্ত্রী মোটরসাইকেল নিয়ে দ্বন্দ্বে ঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা, গ্রেপ্তার ২ সাতক্ষীরায় কোটা বিরোধীদের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া কোটা বহালে হাইকোর্টের রায় বাতিল চেয়ে লিভ টু আপিল আমার নানা-দাদা মুক্তিযোদ্ধা, আমার কোটা লাগে না : মিষ্টি জান্নাত সাতক্ষীরায় কোটা আন্দলনকারী ও ছাত্রলীগ মুখোমুখি অবস্থানে বেনা‌পো‌লে ঘোষণা বহির্ভূত ১৫ হাজার ৭৫০ কেজি সালফিউরিক এসিড জব্দ
টাকা না দিলে মিলছে না বিনামূল্যের বই

টাকা না দিলে মিলছে না বিনামূল্যের বই

জামালপুরের মাদারগঞ্জে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে নতুন বই বিতরণের সময় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।বিনামূল্যে নতুন বই বিতরণ উৎসবের নামে টাকা আদায়ের ঘটনায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।সংশ্লিষ্টরা জানায়, বুধবার উপজেলার ৭০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ ৪ শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হয়। কিন্তু উপজেলার পলিশা উচ্চবিদ্যালয়, পাটাদহ উচ্চবিদ্যালয়, ফুলজোড় রহিম জাফর উচ্চবিদ্যালয় ও শ্যামগঞ্জ উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে বই বিতরণের সময় বই পরিবহন খরচ, খেলাধুলা, বিদ্যুৎ, রেডক্রিসেন্টসহ নানা খাত দেখিয়ে ৫০০ থেকে ১ হাজার টাকা করে আদায় করা হয়েছে।পলিশা উচ্চবিদ্যালয়ের অভিভাবক শফিকুল ইসলাম জানান, তিনি ধানের কুড়া বিক্রি করে ১ হাজার টাকা দিয়ে তার মেয়ের জন্য নতুন বই নিয়েছেন।অপর অভিভাবক বেতাগা গ্রামের মালেক মিয়া জানান, তিনি খড় বিক্রি করে টাকা জোগাড় করে তার নাতির জন্য বই নিতে এসেছেন।অপর দিকে শ্যামগঞ্জ উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ফুলজোড় রহিম জাফর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ৫০০ টাকা করে আদায় করা হয়েছে বলে ছাত্র-অভিভাবকরা জানিয়েছেন।ফুলজোড় রহিম জাফর উচ্চবিদ্যালয়ের ছাত্র-অভিভাবক শেখ জামাল উদ্দিন জানান, টাকা না দেয়ায় ফুলজোড় শেখপাড়া, ভূঁইয়াপাড়া ও প্রামাণিকপাড়ার অন্তত ২০ শিক্ষার্থীকে নতুন বই না দিয়ে ফিরিয়ে দিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।বিনামূল্যের বই বিতরণের সময় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের ব্যাপারে জানতে চাইলে পলিশা উচ্চবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান জানান, তার বিদ্যালয়ে ৮০০ শিক্ষার্থী পড়ালেখা করে। দরিদ্র এলাকার শিক্ষার্থীরা খেলাধুলা, সেশন চার্জসহ অন্যান্য ফি দিতে চায় না; সে জন্য নতুন বই বিতরণের সময় ১ হাজার টাকা করে নেয়া হচ্ছে।প্রায় একই ধরনের কথা বলেন পাটাদহ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম, শ্যামগঞ্জ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম আমিনুর রশিদ ও ফুলজোড় উচ্চবিদ্যালয়ের বিএসসি শিক্ষক জহুরুল ইসলাম।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com