April 21, 2024, 2:25 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
শিরোনাম:
সাতক্ষীরা টাউন হাইস্কুল গণহত্যা দিবস পালিত দালালমুক্ত করতে গিয়ে চাপের মুখে সাতক্ষীরা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস! কলারোয়ায় গলায় গামছা পেঁচিয়ে এক ব্যক্তির আত্মহনন সাংবাদিক সেলিম রেজা মুকুলের স্ত্রীর মৃত্যুতে প্রেসক্লাবের গভীর শোক জ্ঞাপন মোটরযানের উপর সাতক্ষীরায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কলারোয়া উপজেলা চাকুরীজীবি কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের সাধারণ সভা সাতক্ষীরায় তীব্র তাপদাহে জনজীবন অতিষ্ট কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দ্বিতীয় স্ত্রী ঝর্ণা খাতুনের আত্মহত্যা সাতক্ষীরায় সুন্দরবনে হঠাৎ বাঘের আক্রমণে মৌয়াল নিহত সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচার-প্রচারনায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রভাষক এম সুশান্ত
ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধে বিপাকে বই দোকানীরা

ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধে বিপাকে বই দোকানীরা

মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁ প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় করোনায় বিপাকে পড়েছেন কয়েকশ  ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। বিশেষ করে যারা স্কুল-কলেজ কেন্দ্রিক ব্যবসা করেন, এগুলো বন্ধ থাকায় তারা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।অনেক ব্যবসায়ী তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছেন আবার অনেকে শেষ পর্যন্ত মাটি কামড়ে পড়ে আছেন তাদের কর্মস্থলে। করোনার শুরুতে লকডাউনের সময়ে প্রায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে কঠিন সময় পার করতে হয়েছে।
রাস্তাঘাট, কল-কারখানা চালু হওয়াতে ধীরে ধীরে জনজীবন স্বাভাবিক হয়েছে, তবে স্বাভাবিক হতে পারেনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র করে যাদের ব্যবসা। এদের মধ্যে আছেন বইয়ের দোকান মালিক, স্টেশনারি দোকান, শিক্ষার্থীদের ড্রেস তৈরি করে এমন দর্জির দোকান ও স্কুল কলেজের পাশের হোটেল ব্যবসায়ীরা।
পীরগঞ্জ পৌর শহরে  পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় সামনে  বঙ্গবন্ধু সড়কের পাশে বেশ কয়ে একটি বইয়ের দোকান আছে চিত্র চন্দ্র রায়, আব্বাস, আজহারুল ইসলাম, খোকন, মালেক, এই সময় অনন্যা লাইব্রেরী মহাসিন আলী সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তিনি তার দোকানে বসে পত্রিকা পড়ে সময় পার করতেছেন। জানতে চাইলে তিনি বলেন, কাম-কাজ নাই, কী করবো ?’ প্রায় এক বছর থেকে ক্ষতির পরিমাণ এতটা বেড়েছে, তা বলে শেষ করতে পারব না।  ঋণ করে সংসার চালাচ্ছি। জানি না আর কত দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে?
ব্যবসায়িক খোঁজখবর নেওয়ার এক পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘ব্যবসা বলতে আমাদের কোনো কিছু নেই, এখন দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে আমাদের। করোনা মহামারির কারণে আমাদের ব্যবসা এখন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। আমাদের ব্যবসাটা আসলে শিক্ষাকেন্দ্রিক। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় আমরা প্রায় বেকার হয়ে পড়েছি। আমাদের যে টাকা আয় হয় আমাদের ব্যয় তার থেকে বেশি। আমরা ব্যবসাটা ছাড়তেও পারছি না আবার দোকান ভাড়াও পরিশোধ করতে পারছি না। রাস্তায় গিয়ে রিকশাও চালাতে পারছি না আবার কোনো ব্যাংকও আমাদের লোন দেবে না। সত্যি বলতে আমরা জীবনের সবচেয়ে সংকটময় সময় পার করছি।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com