July 16, 2024, 7:34 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
দুই শিশুর মুখে বিষ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা মায়ের ||

দুই শিশুর মুখে বিষ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা মায়ের ||

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় এক মা তাঁর দুই শিশুসন্তানকে বিষ খাওয়ানোর পর নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দুটি শিশুরই মৃত্যু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার রুহিয়া এলাকার ঘনি মহেষপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।মারা যাওয়া শিশু দুটি হল, দেড় বছর বয়সী নুর জামাল ও ছয় বছর বয়সী শাম্মী। তাদের মায়ের নাম নুর বানু (৩৫)।পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, পারিবারিক বিষয় নিয়ে গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে শাশুড়ির সঙ্গে নুর বানুর ঝগড়া বাধে। আজ সকালে সেই জের ধরে তাঁদের মধ্যে আবার ঝগড়া শুরু হয়। ঝগড়ার একপর্যায়ে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ঘরের ভেতর ছেলে নুর জামাল ও মেয়ে শাম্মীর মুখে বিষ ঢেলে দেন নুর বানু। এরপর তিনিও বিষ পান করেন। পরে প্রতিবেশী ও পরিবারের সদস্যরা তাঁদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে নেওয়ার পরপরই কর্তব্যরত চিকিৎসক নুর জামালকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বিকেলের দিকে শাম্মীরও মৃত্যু হয়।নুর বানুর স্বামী সেলিম উদ্দীন বলেন, সকালে দিন মজুরির কাজে তিনি বাড়ি থেকে বের হন। পথে খবরটি শোনার পর বাড়ি ফিরে আসেন। এরপর স্থানীয়দের সহায়তায় স্ত্রী ও সন্তানদের হাসপাতালে নেন সেলিম। সেলিম বলেন, ‘এভাবে দুই সন্তানকে বিষ পান করিয়ে স্ত্রী নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করবে, তা আমি ভাবিনি’।এ বিষয়ে নুর বানুর শাশুড়ি শাহার বানু বলেন, ‘বুধবার নুর বানু বাবার বাড়ি থেকে ফিরে আমার সঙ্গে ঝগড়া বাধিয়ে দেয়। পরে রাগ করে এ ঘটনাটি ঘটায়।’ শাহার বানুর ভাষ্য, নুর বানু তাঁর কাছে জানতে চান তিনি (শাহার বানু) তাঁর (নুর বানু) ঘরের তালা খুলে ভেতরে ঢুকেছেন কিনা? তিনি কিছু জিনিস পাচ্ছেন না— এ নিয়ে তাঁদের ঝগড়ার সূত্রপাত হয়।হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ শাহজাহান নেওয়াজ বলেন, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই নারী ও তাঁর দুই শিশু সন্তানকে হাসপাতালে আনা হয়। ছেলে শিশুটি চিকিৎসা শুরুর আগেই মারা যায়। আর বেলা সাড়ে তিনটার দিকে মেয়েটিরও মৃত্যু হয়।রুহিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার রায় বলেন, শুনেছি পারিবারিক কলহের জেরেই নুর বানু তাঁর দুই সন্তানকে বিষ খাওয়ানোর পর নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তবে এখন পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ করতে আসেনি।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com