April 21, 2024, 3:08 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
নারী লোভী শাহরিয়ার ক্ষপ্পরে দিশেহারা একাধিক নারী

নারী লোভী শাহরিয়ার ক্ষপ্পরে দিশেহারা একাধিক নারী

সদর উপজেলার বল্লী ইউনিয়নে মুখোশধারী নারী ও যৌতুক লোভী শাহরিয়ারে বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে মামলা করেছে তার ২য় স্ত্রী উম্মে কুলসুম। মামলা সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার বল্লী ইউনিয়নের এগারানী গ্রামের মৃত আলতামাস হোসেনের পুত্র লম্পট শাহরিয়া একই ইউনিয়নের কৈখালী, মাগুরা এলাকার ২০২০ সালে জুলাই মাসে আব্দুল কাদেরের কন্যা উম্মে কুলসুম এর সহিত ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক ৩ লক্ষ টাকা দেনমোহরে ২য় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিবাহের কিছু দিন যেতে না যেতেই শাহরিয়া তার ২য় স্ত্রীর উপর যৌতুকের জন্য নির্যাতন শুরু করে। ১ম স্ত্রীও শাহরিয়ারের অত্যাচারের অতিষ্ঠ এবং যৌতুকের ক্ষুদা মেটাতে না পেরে স্বামীর ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়। বিয়ের কয়েক মাস পর ২য় স্ত্রীর গর্ভে তারই উরশজাত সন্তান বেড়ে উঠতে থাকে। সন্তানের বয়স যখন মাতৃগর্ভে ৪ মাস এই যৌতুক লোভী স্বামীর অত্যাচারের কারনে সন্তানটি মাতৃগর্ভে মৃত্যুবরণ করেন। এ বিষয়ে তার ২য় স্ত্রী উম্মে কুলসুম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি কান্নাবিজড়িত কন্ঠে সাংবাদিকদের জানান, আমার স্বামী একজন লম্পট চরিত্রহীন সে একাধিক মেয়েদের সাথে নিজে অবিবাহিত পরিচয় দিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে আর বলে আমার একাধিক মৎস্য ঘের আছে, আমি ইনপুটের একজন বড় ব্যবসাদার, আমার গাড়ি বা একতালা বিশিষ্ট ভবন আছে, আমার আত্মীয় স্বজন প্রশাসনের বড় বড় পদে চাকরি করে, ডিসি,এসপি আমাকে ভাই বলে সম্বোধন করে। খুলনা বিভাগে এমন কোনো মাদারিপো নেই যে, আমার কেউ কিছু করতে পারবে। এসব কিছুর পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় সুন্দরী মেয়ে ও বউদের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। শুধু তাই না কিছু কিছু মেয়েকে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে টাকা নিয়ে চাকরি না দিতে পারলেও টাকা ফেরত দেয় না। ফেরত চাইলে বলে আমার সাথে বিয়ে করতে হবে তা না হলে টাকা ফেরত দেবো না। তার স্ত্রী দুচোখের পানি ছেড়ে বলে আমার মরণ ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। আমি এখন কি করিব। আমি তার ঘরের বউ থাকা শর্তে ও গভীর রাতে আমার পাশ থেকে উঠে বাইরে চলে যায়। বিভিন্ন মেয়েদের সাথে তার দৈহিক সম্পর্ক। তাকে কিছু বলতে গেলে আমাকে বলে তুইও প্রেম কর আর কথায় কথায় মারপিট করে। আমার প্রথমে ৩-৪ মাসের বাচ্চা নষ্ট করেছে। বর্তমানে আমার গর্ভে আবারও ৪ মাস বয়সী একটি সন্তান আছে। আমার প্রায় সময় শারিরীক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করে, বলে তোর বাপের বাড়ি থেকে ১ লক্ষ টাকা নিয়ে আয় তা না হলে তোকে তালাক দেবো। স্বামীর অত্যাচার সহ্য না করতে পেরে সাতক্ষীরা সদর থানায় অভিযোগ ও সাঃ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল আদালতে ২০০৩ এর ১১(গ) ধারা মতে মামলা দায়ের করি মামলা নং ১৬৩/২১ স্বরজমিনে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তার প্রতিবেশিরা জানান, এই শাহরিয়া প্রথম আমাদেরই গ্রামের সন্ধ্যা নামে একটি মেয়েকে বিয়ে করে। তার গর্ভে একটি সন্তান হয়, শারিরীক ও মানসিক নির্যাতনের কারনে বাচ্চাটি নষ্ট করে তাকে ছেড়ে দেয়। শুধু তাই নয় স্কুল-কলেজ পড়–য়া সুন্দরী মেয়ে দেখলে প্রেমের ফাঁদে ফেলানোর চেষ্টা করে। তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায় কলারোয়া এলাকার পপি নামে একটি মেয়ের সাথে দীর্ঘ দিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। মেয়েটি বলে আমার নিকট থেকে ১৭ হাজার টাকা নিয়েছে। ফেরত চাইলে বলে আমার সাথে বিয়ে করতে হবে। শুধু এই নয় ফিংড়ী ইউনিয়নের এক স্কুল শিক্ষিকার সাথেও দীর্ঘ দিনের সম্পর্ক আছে। লম্পটের বাড়ির পাশে পারভীন নামক এক ভাবির সাথে দীর্ঘ দিনের প্রেমের সম্পর্ক ভাবি বাড়ি থেকে যায়গা জমির কেস কামের বিষয় বলে প্রায় সময় তার মটরসাইকেলে উঠে, স্ত্রীর মতো ঘাড় জড়িয়ে শহরের বিভিন্ন যায়গায় ঘুরে বেড়ায়। এসকল বিষয় শাহরিয়ার কাছে জানতে চাইলে সে বলে, ভাবির জমি-যায়গা নিয়ে সাতক্ষীরা আদালতে মামলা চলমান সে কারনে মাঝে মাঝে আমার মটর সাইকেলে উঠে সাতক্ষীরা যায়। আরো বলে পপির নিকট থেকে যে টাকা নিয়েছি ফেরত দিয়ে দেব। ফিংড়ী ইউনিয়নে স্কুল শিক্ষিকা এর সাথে সম্পর্কের কথা শিকার করে সে বলে সম্পর্ক ছিল এ কথা সত্য কিন্তু এখন আর নেই। সে আমার সাথে প্রতারনা করেছে। তবে স্কুল শিক্ষিকার খালাতো বোন আশাশুনি চাম্পাফুল এলাকার মুক্তার সাথে আমার বর্তমানে প্রেমের সম্পর্ক চলছে আমি তাকে বিয়ে করব। না দিলে জোর করে উঠায় নিয়ে আসবো। খুলনা বিভাগে এমন কোনো মাদারিপো নেই যে আমার কেউ কিছু করতে পারবে।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com