April 21, 2024, 2:13 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
শিরোনাম:
সাতক্ষীরা টাউন হাইস্কুল গণহত্যা দিবস পালিত দালালমুক্ত করতে গিয়ে চাপের মুখে সাতক্ষীরা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস! কলারোয়ায় গলায় গামছা পেঁচিয়ে এক ব্যক্তির আত্মহনন সাংবাদিক সেলিম রেজা মুকুলের স্ত্রীর মৃত্যুতে প্রেসক্লাবের গভীর শোক জ্ঞাপন মোটরযানের উপর সাতক্ষীরায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কলারোয়া উপজেলা চাকুরীজীবি কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের সাধারণ সভা সাতক্ষীরায় তীব্র তাপদাহে জনজীবন অতিষ্ট কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দ্বিতীয় স্ত্রী ঝর্ণা খাতুনের আত্মহত্যা সাতক্ষীরায় সুন্দরবনে হঠাৎ বাঘের আক্রমণে মৌয়াল নিহত সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচার-প্রচারনায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রভাষক এম সুশান্ত
প্রতারণার অভিযোগে জেলা পরিষদের ষাটলিপিকার শহীদুজ্জামান কারাগারে

প্রতারণার অভিযোগে জেলা পরিষদের ষাটলিপিকার শহীদুজ্জামান কারাগারে

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের ভূয়া প্রকল্পের অনুমোদনপত্র তৈরি করে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার অনুমোদন সাপেক্ষে নিজ প্রতিষ্ঠানের মোটা অংকের টাকা আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের ষাট লিপিকার একেএম শহীদুজ্জামান ওরফে টুটুলকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করে আবেদন করলে সাতক্ষীরার বিশেষ আদালতের বিচারক শেখ মফিজুর রহমান তার জামিন না’মঞ্জুর করেন। আসামী একেএম শহীদুজ্জামান সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানাধীন পারকুমিরা গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সোহরাবউদ্দিনের ছেলে। মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের ভুয়া প্রকল্পের অনুমোদনপত্র তৈরি করে তা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে উপস্থাপন করে অনুমোদন করান সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের ষাটলিপিকার একেএম শহীদুজ্জামান।

পরবর্তীতে ওইসব প্রকল্প থেকে তিনি জেলা পরিষদের মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ করেন বলে দুর্নীতি দমন কমিশনের খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক তরুণ কান্তি ঘোষ তদন্তে প্রমাণ পান। এ ঘটনায় তিনি গত বছেরর ৩ নভেম্বর খুলনা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে একেএম শহীদুজ্জামানের বিরুদ্ধে দ-বিধির ৪৬৭, ৪৬৮ ও ৪৭১ ধারা তৎসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা দায়ের করেন। একেএম শহীদুজ্জামান সাতক্ষীরা সদরের দেবনগরের বেগম রোকেয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে উন্নয়ন প্রকল্পে তিন লাখ টাকা পাইয়ে দেওয়ার নাম করে তার কাছ থেকে এক লাখ টাকা ঘুষ গ্রহণের সময় ২০১৮ সালের ১২ জুন তার অফিসে দুদক কর্মকর্তাদের হাতে আটক হওয়ার পর জেল হাজতে যাওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়। জানতে চাইলে একেএম শহীদুজ্জামান বলেন, তিনি পরিস্থিতির শিকার। সাতক্ষীরা বিশেষ আদালতে দুদকের মামলা পরিচালনাকারি এড. আসাদুজ্জামান প্রতারণা ও দুর্নীতির মামলায় জেলা পরিষদের ষাটলিপিকার একেএম শহীদুজ্জামন জেল হাজতে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com