April 20, 2024, 7:55 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
শিরোনাম:
কলারোয়া উপজেলা চাকুরীজীবি কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের সাধারণ সভা সাতক্ষীরায় তীব্র তাপদাহে জনজীবন অতিষ্ট কলারোয়ায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দ্বিতীয় স্ত্রী ঝর্ণা খাতুনের আত্মহত্যা সাতক্ষীরায় সুন্দরবনে হঠাৎ বাঘের আক্রমণে মৌয়াল নিহত সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচার-প্রচারনায় ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রভাষক এম সুশান্ত গণভবনের শাক-সবজি কৃষক লীগ নেতাদের উপহার দিলেন শেখ হাসিনা তালায় পানি নিষ্কাশন এর খাল বন্ধ করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ কলারোয়ায় তৃতীয় প্রাণিসম্পদ প্রদর্শনী মেলা শ্যামনগরে অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার জীবাশ্ম জ্বালানিতে বিনিয়োগ বন্ধের দাবিতে শ্যামনগরে ধর্মঘট
ভারত থেকে আগতদের কোয়ারেন্টাইন্ট সেন্টারগুলোতে আজ থেকে বিজিবি মোতায়ন

ভারত থেকে আগতদের কোয়ারেন্টাইন্ট সেন্টারগুলোতে আজ থেকে বিজিবি মোতায়ন

গণমাধ্যমকর্মীদের অবহিতকরণ সভা
বেনাপোল দিয়ে ভারত থেকে আগত বাংলাদেশীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ

বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আগত বাংলাদেশী নাগরিকদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ ও গৃহীত কার্যক্রম বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের অবহিতকরণ সভা আজ (রবিবার) দুপুরে খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আগত বাংলাদেশী নাগরিকদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণে সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এ বন্দর দিয়ে ২৬ এপ্রিল থেকে আগত যাত্রীদের খুলনা বিভাগের বিভিন্ন জেলার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে। জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ ও জেলা সিভিল সার্জনের সহায়তায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা নাগরিকদের দেখাশোনা করা হচ্ছে। নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে বিভিন্ন জেলার এসব কোয়ারেন্টাইন্ট সেন্টারগুলোতে আজ থেকে বিজিবি মোতায়ন করা হবে।

সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে বিভাগীয় কমিশনার জানান, ২৬ এপ্রিল থেকে ৮ মে পর্যন্ত ভারত থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে দুই হাজার পাঁচশত ৬৪ জন বাংলাদেশী নাগরিক এসেছেন। তাদের প্রথমত যশোরের বিভিন্ন কোয়ারেন্টাইন্টন সেন্টারে রাখা হয়। পরে যাত্রীর সংখ্যা বেশী হওয়ায় পর্যায়ক্রমে খুলনা, সাতক্ষীরা, নড়াইল, ঝিনাইদহ ও মাগুরা জেলার কোয়ারেন্টাইন্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, যাত্রী আনা নেয়া এবং খাবারসহ অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিতকরণে জেলা প্রশাসন সার্বিক সমন্বয় করছে। কোয়ারেন্টাইন্টনে থাকা ব্যক্তিরা সুস্থ্য আছেন। যাদের করোনা পজেটিভ রয়েছে তাদের সংক্রমণজনিত জটিলতা নেই। তবে সংক্রমিত ব্যক্তিদের সম্পূর্ণ আলাদা করোনা ইউনিটে রাখা হবে। মন্ত্রিপরিষদের সিদ্ধান্ত, নতুন কোন সংক্রমিত যাত্রীকে আনা হবে না। আগামী ১১ মে তারিখে ২৬ এপ্রিল আগত যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইন্টন শেষ হবে। এসব ব্যক্তিরা সাফল্যের সাথে কোয়ারেন্টাইন্টন সমাপ্ত করার সার্টিফিকেট পাবেন।

উল্লেখ্য, যশোর জেলায় এক হাজার একশত ৪০ জন, খুলনায় পাঁচশত ২১ জন, নড়াইল জেলায় ৯৯ জন, ঝিনাইদহে একশত ৬৩ জন, সাতক্ষীরায় তিনশত ৩০ জন এবং মাগুরাতে ৫০ জন যাত্রী কোয়ারেন্টাইন্টন সেন্টারে রয়েছেন।

অবহিতকরণ সভায় অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সুবাস চন্দ্র সাহা, অতিরিক্ত ডিআইজি একেএম নাহিদুল ইসলাম, খুলনা স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডাঃ রাশেদা সুলতানা, খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার জিনাত আরা আহমেদ, প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন, সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মুন্সি মোঃ মাহবুব আলম সোহাগসহ ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন। তথ্যবিবরণী


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com