February 28, 2024, 1:29 pm

ভোমরায় শ্রমিক দিচ্ছে না ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান, ৪ ঘন্টা বন্ধের পর সচল বন্দর

ভোমরায় শ্রমিক দিচ্ছে না ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান, ৪ ঘন্টা বন্ধের পর সচল বন্দর

স্বাধীনতার মহানায়ককে অপমানিত করে কেউ টিকে থাকতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন সাতক্ষীরায় সদ্য যোগদান করা পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান। পৃথিবীর কোনো দেশে এমনকি পাশর্^বর্তী দেশ ভারতের জাতির জনক মহাত্মা গান্ধী, পাকিস্তানের জাতির জনক মোহাম্মদ আলি জিন্নাহকে অস্বীকার ও অপমানিত করে সেসব দেশে কেউ টিকে থাকতে পারে না উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আমাদের দুর্ভাগ্য যারা স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে বিশ^াস করে না তারাও এক সময় বাংলাদেশের মন্ত্রীও হয়েছিলেন।পুলিশ সুপার বলেন, ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধ বিরোধীরা, ৭৫ এ বঙ্গবন্ধু হত্যাকারী এবং ২০১৩ সালে যারা দেশকে ভয়াবহ সন্ত্রাসের মধ্যে ঠেলে দিতে চেয়েছিল তাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এক ও অভিন্ন।
প্রসঙ্গ টেনে তিনি আরও বলেন, আমরা গর্বিত ১৯৭১ এ পাক হানাদার বাহিনীকে প্রতিহত করতে সবার আগে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে বুকের রক্ত দিয়েছিল পুলিশ। ৭৫ এ বঙ্গবন্ধুকে রক্ষায় পুলিশ প্রাণান্ত চেষ্টা করে জীবন দিয়েছিল। আর ২০১৩ এর ভয়াবহ সহিংসতার দিনে শান্তি ফেরাতে বাংলাদেশ পুলিশের ৪০ সদস্য প্রাণ দিয়েছিলেন। এখন বাংলাদেশ পুলিশ জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমন করে আধুনিক ও দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখছে। পদ্মা সেতু, ফোর লেন, হাইওয়ে নির্মান এসব কিছুই সম্ভব হচ্ছে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি সম্পুর্ন নিয়ন্ত্রণে থাকার কারনে।
পুলিশ সুপার বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের শহিদ সম আলাউদ্দিন মিলনায়তনে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময়কালে এসব কথা বলেন। পুলিশ সুপার বলেন, আমরা বৃটিশ পুলিশ নই, আমরা পাকিস্তানি পুলিশ নই, আমরা স্বাধীন বাংলাদেশের পুলিশ। তাই সামাজিক স্থিতিশীলতা রক্ষা . মানবাধিকার সুরক্ষা, জঙ্গিবাদ নির্মুল করা , মাদক নিশ্চিহ্ন করা আমাদের দায়িত্ব উল্লেখ করে তিনি বলেন পুলিশ সবার সহযোগিতা নিয়ে কাজ করতে চায়। কোনা ক্ষুদ্র ও ব্যক্তি স্বার্থ নয় আসুন দেশকে ভালবাসি। সব ধরনের ইতিবাচক ও নেতিবাচক অবস্থার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ একটি আদর্শ পুলিশ বাহিনী হিসাবে নিজেকে গড়ে তুলতে চায় জানিয়ে পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন ৯০ এ গণতন্ত্র উদ্ধারেও পুলিশ প্রাণ দিয়েছে । তিনি বলেন পুলিশ সব সময় জীবন বাজি রেখে কাজ করে। মিডিয়া সমাজের দর্পণ উল্লেখ করে তিনি বলেন পুলিশ ও মিডিয়ার লক্ষ্য এক ও অভিন্ন। কিছু কিছু অনলাইনে ভ্রান্ত তথ্য দিয়ে রিপোর্ট ছাপা হচ্ছে। তিনি তাদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন প্রয়োজনে আইসিটি অ্যাক্টে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে। এসব অনলাইন সাংবাদিকতার আড়ালে থেকে অনেকে চাঁদাবাজি ও মাদক পাচারে জড়িয়ে পড়ছে জানিয়ে পুলিশ সুপার বলেন, এমন একজনকে সাতক্ষীরায় গ্রেফতারও করা হয়েছে।
সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদের সভাপতিত্বে ও প্রেসক্লাব সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপীর সঞ্চালনায় মত বিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী, প্রথম আলোর কল্যাণ ব্যানার্জি, প্রেসক্লাবের সাবেক সহ সভাপতি আবদুল ওয়াজেদ কচি, সাবেক সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান, সাবেক সাধারন সম্পাদক এম কামরুজ্জামান, সাবেক সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জ্বল, দৈনিক সাতনদী সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব,আরটিভির রামকৃষ্ণ চক্রবর্তী প্রমূখ। তারা সাতক্ষীরার আইনশৃংখলা, মাদক পাচার, জঙ্গিবাদ, চোরাচালান,সন্ত্রাসসহ বিভিন্ন সমস্যা এবং পুলিশের ভূমিকা নিয়ে বক্তব্য রাখেন।
মত বিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.ইলতুৎমিশ, সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মির্জা সালাহউদ্দিন, সাতক্ষীরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, পুলিশ পরিদর্শক মো. মিজানুর রহমান প্রমূখ।


Comments are closed.

© সাতক্ষীরা প্রবাহ
Design & Developed BY CodesHost Limited