July 17, 2024, 2:24 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ৩৮০ জন শহীদ ভারতীয় সেনা সদস্যের জন্য সম্মাননা স্মারক প্রস্তুত

মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ৩৮০ জন শহীদ ভারতীয় সেনা সদস্যের জন্য সম্মাননা স্মারক প্রস্তুত

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ভারতীয় সেনা সদস্যের মধ্যে ৩৮০ জনের জন্য সম্মাননা স্মারক প্রস্তুত রয়েছে, যা শিগগিরই ভারতীয় পক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে। বাংলাদেশকে ভারতের স্বীকৃতির ৪৮তম বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এ তথ্য জানান।শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরে কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ও বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ তথ্য জানান।পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের আত্মত্যাগের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রধানমন্ত্রী ২০১৭ সালে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ভারতীয় অনেক সেনা পরিবারের সদস্যদের সম্মাননা প্রদান করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ১২ ভারতীয় সশস্ত্রবাহিনীর সদস্যের পরিবারের হাতে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা তুলে দেন। অবশিষ্ট ১ হাজার ৫৮২ জন শহীদ ভারতীয় সেনা সদস্যকেও সম্মাননা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। সম্প্রতিকালে বাংলাদেশ সরকার ৩৮০ জন শহীদ ভারতীয় সেনা সদস্যের জন্য সম্মাননা স্মারক প্রস্তুত করেছে, যা শীঘ্রই ভারতীয় পক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’তিনি আরও বলেন, ‘একাত্তরে দেশের ৩ কোটি লোক বাড়িছাড়া হয় এবং মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ভারত বাংলাদেশের ১ কোটি শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়ে, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে এবং তাদের অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে যে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে পৃথিবীর ইতিহাসে তা তুলনাহীন। বাংলাদেশের বিপৎকালীন সময়ে ভারতের জনগণের সহানুভূতি এবং অতিথেয়তা এ দেশের মানুষ সব সময়েই স্মরণ করবে। এছাড়া বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের পক্ষে জনমত গঠনে ভারত সরকারের অপরিসীম অবদান কখনোই ভোলার নয়। বাংলাদেশকে স্বাধীন করার জন্য ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর প্রায় ১৭ হাজার সদস্য শহীদ হয়েছেন এবং আরও অনেকে আহত হয়েছেন। আজ শ্রদ্ধাবনতচিত্তে স্মরণ করছি আমাদের মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় সশস্ত্রবাহিনীর সেসব শহীদদের এবং ভারতীয় জনগনের অপরিসীম অবদানের কথা।’সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ। এ ছাড়া মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার কর্নেল শওকত আলী, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি এবং লেখক ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির, মানবাধিকার নেত্রী অ্যারোমা দত্ত এমপিসহ আরও অনেকে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com