February 29, 2024, 7:40 pm

রোববার বেলা ২টার সময় রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি সাতক্ষীরা জেলা ইউনিটের কার্যালয়ের সামনে থেকে তোলা

রোববার বেলা ২টার সময় রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি সাতক্ষীরা জেলা ইউনিটের কার্যালয়ের সামনে থেকে তোলা

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সাতক্ষীরা ইউনিটের নির্বাচন নিয়ে চলছে তামাশা। গোপনে ইচ্ছেমত সদস্যদের অংশগ্রহণ ছাড়াই নির্বাচন সম্পন্ন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটি। নির্বাচনে অংশ নিতে ইচ্ছুক প্রার্থীদের হুমকি দিয়ে এবং পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নির্বাহী কমিটি। নির্বাচনের দিন তারিখ ও সময় নির্ধারণ করেও নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা কেউ রেড ক্রিসেন্ট অফিসে উপস্থিত হয়নি। ফলে শনিবারের মূলতুবি সভা রবিবারে হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। এতে ভোটার তালিকা প্রকাশ, ভোটার তালিকায় আপত্তি শুণানী, চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ, মনোনয়ন পত্র ক্রয় ও জমা এবং নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ হওযা সত্ত্বেও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি। নির্বাচনে অংশ নিতে ইচ্ছুক প্রার্থীরা গোপনে বিষয়টি জানতে পেরে রেড ক্রিসেন্ট অফিসে গেলে সেখানে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কোন ব্যক্তিকে পাওয়া যায়নি বলে জানান তারা। আজীবন সদস্যরা জানান, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেই অফিস ছেড়ে পালিয়ে গেছেন সংশ্লিষ্টরা। তারা আরও জানান, শনিবার সাধারণ সভার মাধ্যমে নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা ছিল। কিন্তু কোরাম পূর্ণ না হওয়ায় তা ভেস্তে যায়। আজীবন সদস্যদের অভিযোগ, ১১৪৪ জন আজীবন সদস্যের মধ্যে মাত্র ৪৬ জন সদস্য কাগজে কলমে উপস্থিত ছিলেন। ওই দিন সভা মূলতুবি ঘোষণা করা হয়।আজীবন সদস্যরা জানান, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সাতক্ষীরা ইউনিটের আজীবন সদস্যরা জেলার বিশিষ্ট জন। সমাজের দায়িত্বশীল ব্যক্তিও বটে। কিন্তু তাদের ভোটাধিকার ও নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে শুরু হয়েছে চরম তামাশা। আন্তর্জাতিক একটি মানবিক সংগঠনের নির্বাচন নিয়ে জেলার কিছু ক্ষমতালোভী ব্যক্তি সংগঠনটির মান-মর্যাদা ভুলুণ্ঠিত করছে। সংগঠনটিকে প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলছে কুচক্রি এ মহলটি।এদিকে সূত্র জানায়, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সাতক্ষীরা ইউনিটের সাধারণ সভা ও কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন-২০১৯ উপলক্ষে ১৩ অক্টোবর সকাল ১০টায় সংগঠনটির নিজস্ব কার্যালয়ে শনিবারের মূলতুবি সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। যা অধিকাংশ সদস্য জানেন না। একই পত্রিকায় ঘোষণা করা হয় নির্বাচনী তফসীল। তফসীল অনুযায়ী ১৩ অক্টোবর সকাল ১০ টায় খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ, একই দিন সকাল ১০:১৫ মিনিটে ভোটার তালিকায় আপত্তি দাখিল ও নিষ্পত্তি, সকাল ১০:৩০ মিনিটে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ, সকাল ১০:৪০ মিনিটে প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বিক্রয়, দুপুর ১১টায় প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল, দুপুর ১১:২০ মিনিটে মনোনয়নপত্র বাছাই, দুপুর ১১:৪০ মিনিটে মনোনয়নপত্র সংক্রান্ত আপত্তি গ্রহণ। দুপুর ১২ টায় মনোনয়নপত্র সংক্রান্ত আপত্তি নিষ্পত্তি। ১২:১০ মিনিটে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ (খসড়া), দুপুর ১২:২০ মিনিটে প্রার্থীতা প্রত্যাহার, দুপুর ১২:৩০ মিনিটে চূড়ান্ত বৈধ প্রার্থী প্রকাশ এবং দুপুর ১টায় নির্বাচন ও ফলাফল প্রকাশ। নির্বাচন সমন্বয়কারী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছিলেন শেখ তামিম আহমেদ সোহাগ। কিন্তু ১৩ অক্টোবর সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত নির্বাচন তফসীল অনুযায়ী কোন কর্মকর্তাকেই পাওয়া যায়নি রেড ক্রিসেন্ট অফিসে। ফলে আজীবন সদস্যরা হতাশ হয়ে ফিরে যান। নির্বাচনে অংশ নিতে ইচ্ছুক প্রার্থীরাও সভায় অংশগ্রহণ করতে না পেরে ফিরে যান। আজীবন সদস্যরা জানান, জেলার সুশীল সমাজকে নিয়ে তামাশায় মেতেছেন বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির কতিপয় ব্যক্তি। তাদের উপর ভর করেছে একটি কালো ছায়া-যা আর্ত-মানবতার সেবায় নিয়োজিত আন্তর্জাতিক সংগঠন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সাতক্ষীরা ইউনিটকে চরমভাবে কলুষিত করছে।সার্বিক বিষয়ে নির্বাচন সমন্বয়কারী শেখ তামিম আহমেদ সোহাগের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কোর্টে আছি। এরপর সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তিনি মোবাইল ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন।


Comments are closed.

© সাতক্ষীরা প্রবাহ
Design & Developed BY CodesHost Limited