July 16, 2024, 7:31 pm

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
সাতক্ষীরা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন নিয়ে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি

সাতক্ষীরা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন নিয়ে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি

সাতক্ষীরা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ৩৭ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন নিয়ে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি। খোঁজ নিয়ে জানা যায় ২২/০৩/২০২৩ তারিখ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী থাকলেও তৃণমূল নেতাদের বাদ দিয়ে কাউন্সিল না করে দলীয় গঠনতন্ত্র কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক অর্থের বিনিময়ে হাবিবুর রহমান বিটু কে সভাপতি ও তিন জন কে সহ-সভাপতি এবং ইদ্রিস আলী বাবু কে সাধারণ সম্পাদক করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি পকেটে কমিটির অনুমোদন দেয় এবং ৭দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেয়। দীর্ঘ ১৫ মাস পর ৩৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে পকেট কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী বাবু। ৫সদস্য বিশিষ্ট পকেট কমিটির সহ-সভাপতি রাকিবুল, ইসলাম সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম সাগর, সহ-সভাপতি আছাদুজ্জামান কে না জানিয়ে নিজের ইচ্ছা মত সরাসরি চাকরিজীবি অরাজনৈতিক ব্যক্তি দিয়ে কমিটি গঠন করে যা সম্পূর্ণ দলীয় গঠনতন্ত্র বিরোধী।

অর্থের বিনিময়ে অদক্ষ লোক দিয়ে কমিটি গঠন করায় সংসদ নির্বাচনে সদর আসনের দুই বারের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবির পরাজয় এবং সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাচনে ও একই কারনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের পরাজয়ের কারণ বলছেন তৃণমূল পর্যায়ে নেতাকর্মীরা।

সভাপতি হাবিবুর রহমান বিটু শহরের মুন্সীপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি সাবেক একজন জনপ্রতিনিধির বডিগার্ড ও নিকট আত্মীয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সবশেষে সদস্য সংগ্রহের সময় তিনি দলে প্রবেশ করেন এবং আত্মীয়ের ক্ষমতা বলে সভাপতি হন যদিও তিনি এর আগে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে তাকে দেখা যায়নি বলে জানান দলীয় একাধিক নেতাকর্মীরা।

সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী বাবু, শহরের ধোপাপুকুর এলাকার বাসিন্দা। দলীয় একাধিক নেতাকর্মীরা জানান তিনি অন্য একটি পার্টি থেকে এসে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে সাধারণ সম্পাদক পদ কিনেছেন।

কমিটির সহ-সভাপতি রাকিবুল ইসলাম জানান সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী বাবু অন্য পার্টির থেকে এসে কি ভাবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড কমিটির সাধারণ সম্পাদক হলেন এটা আমার বোধগম্য নয়।

 সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম সাগর বলেন, এটাকে ওয়ার্ড কমিটি বলে না, এটা হয়েছে আঞ্চলিক কমিটি। ৫টি গ্ৰাম নিয়ে ২নং ওয়ার্ড গঠিত ৫গ্ৰাম মিলে সরকারি চাকরিজীবী দিয়েও পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের ব্যর্থ সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী।

সহ-সভাপতি,শামছুল আলম বলেন, কমিটির বিষয়ে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের দূরসময়ের দলীয় নেতা কর্মীদের বাদ দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র না মেনে সরকারী কর্মকর্তা ও এমপি ভূক্তো কলেজর শিক্ষক এবং নিজের ইচ্ছা মত একটি ত্রুটিপূর্ণ পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ করে সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী। তিনি সাতনদী কে জানান দলীয় বিষয়ে কথা বলার আগ্ৰহ নেই।

এবিষয়ে সাবেক সাধারণ সম্পাদক বর্তমান সহ-সভাপতি আছাদুজ্জামান জানান, আমাদের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আগের কমিটি ছিল ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট। বর্তমান কমিটি গঠনের বিষয়ে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কেউ আমাকে জানায়নি।

সহ-সভাপতি নারায়ন চন্দ্র বলেন আমর পোস্টিং আশাশুনি আমার চাকরি এখনো ৫/৬ বছর আছে। কমিটি গঠনের সময় আমাকে জানানো হয়নি।

এবিষয়ে জানতে চাইলে সভাপতি হাবিবুর রহমান বিটু জানান কমিটিতে আমার কোন লোক নেই। এবিষয়ে কিছু জানার থাকলে সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী বাবুর সাথে যোগাযোগ করুন।

সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী বাবুর সাথে এবিষয়ে কথা বলার জন্য তার ব্যবহার মোবাইল নাম্বারে ০১৯২৪৪২৫৭৮৫ ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

বিগত কমিটি ৬৭ বর্তমান কমিটি ৩৭ কেন জানতে চাইলে পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রাশি জানান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এটা ভূল তথ্য প্রকাশ হয়েছে বলে তিনি মনে করেন। কমিটি তে সরকারি চাকরিজীবী অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে তিনি বলেন এটা দলীয় গঠনতন্ত্র বিরোধী। কোন সদস্য জেলা আওয়ামী লীগ বরাবর আবেদন করলে বিষয়টি সমাধান হবে আশাকরি।  পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন জানান এধরনের কেউ থাকলে সে বাদ যাবে।


Leave a Reply

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com