July 13, 2024, 3:39 am

সাংবাদিক আবশ্যক
সাতক্ষীরা প্রবাহে সংবাদ পাঠানোর ইমেইল: arahmansat@gmail.com
স্কুল সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

স্কুল সভাপতির বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তের জন্য গভর্নিং বডির রেজুলেশনের মাধ্যমে ২০১৭ সালের ৩ জুলাই গঠন করা হয় একটি অর্থ উপকমিটি। তদন্তের পর এক বছর আগে দুর্নীতির অভিযোগটি প্রমাণিত হলেও সাবেক দুই ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়টিও গত এক বছর গোপন করেন গভর্নিং বডির সভাপতি। এমন অভিযোগ উঠেছে ত্রিশালে বালিপাড়া ইউনিয়নের ধলা স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি আবদুল বাতেনের বিরুদ্ধে।

ধলা স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সাধারণ সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তে ২০১৭ সালের ৩ জুলাইয়ের চিঠি অনুযায়ী সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোফাজ্জল হোসাইন ও আরিফা নাসরিনের বিভিন্ন অনিয়ম ও অর্থ দুর্নীতির অভিযোগে তদন্তের জন্য একটি উপকমিটি গঠন করেন গভর্নিং বডির সভাপতি আবদুল বাতেন। পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট ওই উপকমিটি ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোফাজ্জল হোসাইন ও আরিফা নাসরিনের দায়িত্ব পালনকালীন সময়ের আয়-ব্যয় নির্ধারণের জন্য আদায় রশিদ বহি ও ভাউচার, দৈনন্দিন আদায় বহি ও প্যাটি ক্যাশ বহি, কলামনার ক্যাশ বহি নিরীক্ষণ, প্রতি মাস শেষে নগদ তহবিল ও ব্যাংক তহবিল নির্ণয়, সব আয় দৈনন্দিন আদায় বহিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে কি-না নির্ধারণ, সব খরচের ভাউচার নিরীক্ষণ ও ব্যয়ের অসঙ্গতি নির্ণয়করণ, নির্ধারিত সময় শেষে আয়-ব্যয়ের তুলনামূলক প্রতিবেদনের ওপর তদন্তে নামেন।তদন্তের পর ২৯ অক্টোবর কমিটির আহ্বায়ক মাহাতাব উদ্দিন, সদস্য জহিরুল ইসলাম, একেএম আলাউদ্দিন, কামরুল হুদা ও মোফাজ্জল হোসেন মানিক স্বাক্ষরিত প্রতিবেদনটি গভর্নিং বডির কাছে জমা হয়। তদন্তে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোফাজ্জল হোসাইন ও আরিফা নাসরিনের দুর্নীতি প্রমাণিত হয়।গভর্নিং বডির একাধিক সদস্য ও শিক্ষকরা জানান, এক বছর আগে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হলেও সাবেক ওই দুই ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের ব্যবস্থা নেয়নি গভর্নিং বডি। টাকার বিনিময়ে তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়টিও গত এক বছর গোপন করেন গভর্নিং বডির সভাপতি আবদুল বাতেন। এছাড়াও টাকার বিনিময়ে অভিযুক্ত আরিফা নাসরিনকে স্থায়ীভাবে অধ্যক্ষ নিয়োগ দেওয়ার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন সভাপতি আবদুল বাতেন।তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক মাহাতাব উদ্দিন জানান, সাবেক দুই ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে।অভিযোগ অস্বীকার করে কলেজের সভাপতি আবদুল বাতেন বলেন, তদন্ত প্রতিবেদনে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোফাজ্জল হোসাইনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হলেও অনেক অনুনয়-বিনয়ের ফলে তার কাছ থেকে ৩৩ হাজার টাকা কেটে রাখা হয়। আরিফা নাসরিনের আপত্তিতে ফের পাঁচ সদস্যের আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।


Comments are closed.

ইমেইল: arahmansat@gmail.com
Design & Developed BY CodesHost Limited
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com